fbpx

লকডাউনে স্বস্তি দিতে ফের আসছে রামানন্দ সাগরের  ‘রামায়ণ’ 

লকডাউনে স্বস্তি দিতে ফের আসছে রামানন্দ সাগরের  'রামায়ণ' 

 

নিজস্ব সংবাদদাতা: এই প্রজন্মের অনেকেই জানেন না। তাঁরা শুনেছেন বাড়ির বড়দের কাছে। সেসব আশির দশকের কথা। শুরু হয়েছিল ১৯৮৭-র ২৫ জানুয়ারি। শেষ ৩১ জুলাই ১৯৮৮। দেড়বছর টানা চলেছিল ‘রামায়ণ’। প্রতি রবিবার সকাল ন’টা ছিল নির্ধারিত সময়। ঠিক প্রজাতন্ত্র দিবসের আগের দিন। ভারতের টেলিভিশনের ইতিহাসে অন্যতম সেরা মেগা সিরিয়াল। সিরিয়ালটি হল ‘রামায়ণ’।

দেশের প্রতিটি মানুষের কাছে ‘রামায়ণ’ এবং ‘মহাভারত’ হল সবচেয়ে বেশি পঠিত এবং জনপ্রিয়। তাই ‘রামায়ণ’ প্রতি রবিবার দেখানো হবে শুনে আসমুদ্রহিমাচলের টিভির সামনে বসতেন নিয়ম করে। বেশিরভাগ মানুষই বাজার-হাট সহ যাবতীয় হাতের কাজ শেষ করে  ফেলতেন। মহিলারাও রান্নার জোগাড়যন্ত্র করে বসে পড়তেন টিভির সামনে। পথঘাট, বাস-গাড়ি সব ফাঁকা। মনে হত যেন অঘোষিত কার্ফু চলছে শহর জুড়ে।

‘রামায়ণ’-এর ওই জনপ্রিয়তা আজও বর্ষীয়ান মানুষেরা মনে রেখেছেন। ২১ দিনের লকডাউনে মানুষ সঙ্গ দিতে আগামিকাল শনিবার ২৮ মার্চ আবার আসছে রামানন্দ সাগরের মেগা সিরিয়াল ‘রামায়ণ’। দেখানো হবে দূরদর্শনে। লকডাউনের জন্য মানুষের কাছে এখন প্রতিটি দিনই রবিবার। সূত্রের খবর, বহু মানুষ নাকি অনুরোধ করেন ‘রামায়ণ’ দেখানোর জন্য। তাই আর একবার ‘রামায়ণ’ আসছে। এই সিরিয়ালটি এমনই জনপ্রিয় হয়ে ওঠে যে, অরুণ গোভিলকে রাম এবং দীপিকা চিকলিয়াকে সীতা বলে ধরেই নিয়েছিলেন দেশের বহু সাধারণ মানুষ। বহু বাড়ির বয়স্ক পুরুষ ও মহিলারা স্নান সেরে দেখতে বসতেন ‘রামায়ণ’। তেত্রিশ বছর আগের মতো রামানন্দ সাগরের ‘রামায়ণ’ কতটা ছাপ ফেলতে পারে মানুষের মনে।

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

 

ছবি: গুগল
আরও পড়ুন: এসইউসিআই (কমিউনিস্ট)-এর যুব সংগঠন অল ইন্ডিয়া ডিওয়াইও গরিব মানুষের মধ্যে মাস্ক বিলি করল

 

 

Get real time updates directly on you device, subscribe now.

Comments are closed, but trackbacks and pingbacks are open.

You're currently offline