মুকুল আমাদের ঘরেরই ছেলে: মমতা

২০১৭-র নভেম্বর থেকে ২০২১-এর জুনের ১১, মাঝের এই ক’টা বছর আর দিন পদ্মশিবিরে কাটিয়ে ফের তৃণমূলে ফিরলেন মুকুল রায়। যদিও বেশ কয়েকদিন ধরেই ঘাসফুল শিবিরে তাঁর ফেরা নিয়ে জল্পনা ছিল তুঙ্গে। অবশেষে সব জল্পনার অবসান ঘটিয়ে তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়ের উপস্থিতিতে পুরনো জায়গায় ফিরে এলেন বিজেপির সর্বভারতীয় সহ সভাপতি মুকুল রায়। তাঁর এই প্রত্যবর্তনকে স্বাগত জানালেন নেত্রী। বললেন, মুকুল আমাদের ঘরের ছেলে। মুকুলের সঙ্গে পুত্র শুভ্রাংশুও তৃণমূলে ফিরলেন। প্রসঙ্গত, ২০১৭-তে মুকুল রায় তৃণমূল ত্যাগ করে যোগ দেন বিজেপিতে। এবং খবর, তাঁর হাত ধরেই নাকি একের পর এক বিজেপিতে যুক্ত হন অর্জুন সিং, সৌমিত্র খাঁ, অনুপম হাজরাদের মতো তৃণমূল সদস্যরা। ২০১৯-এর লোকসভা নির্বাচনে বাংলায় বিজেপির যে বৃদ্ধি তা মুকুল রায়ের জন্যই সেকথা বিজেপির নেতৃত্বও স্বীকার করে।

mikul rai

২০২১-এর বিধানসভা নির্বাচনে যখন বাংলা জুড়ে বিজেপির সরকার গঠন নিয়ে শোরগোল শুরু হয় সেইসময় আশ্চর্যজনকভাবে চুপ ছিলেন মুকুল রায়। নন্দীগ্রামে নির্বাচনী সভায় বলেছিলেন, ‘মুকুল ওদের থেকে অনেক ভাল।’ দিদিমণির মুখে মুকুলের প্রশংসা নিয়ে রাজনৈতিক মহলে এবং মিডিয়ায় চাপা গুঞ্জন চলতে থাকে। এমনকী বিধানসভা নির্বাচনে জেতার পর এবং বিরোধী দলনেতার পদ নিয়ে কোনও মন্তব্য করেননি মুকুল। বরং বিধায়ক হিসেবে শপথ নেওয়ার তিন তৃণমূল নেতাদের কিছুটা সময় কাটিয়েছিলেন। মুকুল বলেছিলেন, এ সৌজন্য সাক্ষাৎ।

তখন থেকেই একপ্রকার ভাবনা শুরু হয়েই গেছিল, তবে কি মুকুল রায় আবার পুরোনো জায়গায় ফিরছেন? অবশেষে ফিরলেন আজ। তৃণমূলের সাংবাদিক সম্মেলনে মুকুল রায় এবং পুত্র শুভ্রাংশুকে উত্তরীয় পরিয়ে স্বাগত জানান দলের সর্বভারতীয় সম্পাদক অভিষেক বন্দ্যোপাধ্যায়।
তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় বলেছেন, ‘Old is always Gold.’

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *