করোনা সংক্রমণ কমা মানে নির্মূল নয়, নিয়ম মেনে চলবেন

নিজস্ব প্রতিনিধি: করোনার দ্বিতীয় ঢেউ কিছুটা হলেও প্রশমিত হয়েছে। রাজ্য জুড়ে মাসাধিক কাল চলছে লকডাউন। কিন্তু লকডাউন চললেও বিধিনিষেধ কমেছে অনেকটাই। ধীরে ধীরে ছাড় দেওয়াও হয়েছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। আর কড়াকড়ি শিথিল হতেই রাজ্যবাসীর মধ্যে শুরু হয়ে গেছে নিয়ম ভাঙার তোড়জোড়। রাস্তায় বেরিয়ে পড়েছে অজস্র গাড়ি। যেখানে নিষেধ আছে বিশেষ জরুরি কাজ ছাড়া কেউ বের হবে না। সেখানে এমন বহু মানুষ রাস্তায় বেরিয়ে পড়ছেন যাঁদের খুব জরুরি কোনও প্রয়োজনে আছে বলে মনে হয় না। আর সবচেয়ে বড় কথা অধিকাংশের মুখেই নেই মাস্ক। যা যথেষ্ট চিন্তার কারণ বলে মনে করছেন চিকিৎসক মহল। প্রশাসনিক ছাড়ের সুযোগ নিয়ে মানুষের এই দায়িত্বজ্ঞানহীন আচরণ যে ভবিষ্যৎ সমস্যার দিকে এগিয়ে নিয়ে যেতে চলেছে সেই কথা বলে তাঁরা সতর্ক করছেন বারবার। একদিকে দরজায় কড়া নাড়ছে তৃতীয় ঢেউ। তাই তাঁদের বক্তব্য, এটাই প্রকৃত সতর্ক হওয়ার সময়। নিয়মবিধি মেনে চলার প্রয়োজন।

শুধু বেপরোয়াভাবে রাস্তায় বেরিয়ে পড়া নয়, যদি পরে সম্ভব না-হয় তাই আসন্ন দুর্গাপুজোকে সামনে রেখে পুজোর বাজার সেরে ফেলারও এক তীব্র ইচ্ছা ক্রমশ গ্রাস করছে বহু মানুষকে। ঘর ছেড়ে দোকান দোকান ঘুরে বেড়াচ্ছেন অনেকেই। যার পরিণতি যে ভয়াবহ হতে পারে, সে বিষয়েও চিকিৎসকেরা সচেতন করতে শুরু করেছেন ইতিমধ্যেই।

lockdown

এর সঙ্গে ভ্রমণপিপাসু বাঙালির ভ্রমণের ইচ্ছা মাথা চাড়া দিয়ে উঠেছে ক্রমশ। দূরপাল্লার ট্রেনের সংখ্যা বাড়তেই বিভিন্ন পর্যটন কেন্দ্র যাওয়ার ইচ্ছা জানিয়ে ট্রেন, প্লেনের টিকিট কাটতে ব্যস্ত হয়ে পড়েছেন অনেকেই।

দেশের দৈনিক আক্রমণের গ্রাফ ক্রমশ নিম্নমুখী এটা একদম ঠিক কথা, শেষ ২৪ ঘণ্টায় করোনা আক্রান্ত হয়েছেন ৪২ হাজার ৬৪০ জন। গত তিনমাসের এর মধ্যে এই প্রথম এতটা কমল করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। প্রত্যেককে মাথায় রাখতে হবে করোনা আক্রান্তের সংখ্যা কমে যাওয়া মানে, নির্মূল হওয়া নয়।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *