কথা রাখলেন মুখ্যমন্ত্রী

নিজস্ব প্রতিনিধি: ২০২১ বিধানসভা নির্বাচনের সময় ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষার জন্য সরকারি সাহায্যের কথা প্রতিশ্রুতি হিসাবে ঘোষণা করেছিলেন তৃণমূল সুপ্রিমো মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। ভোটের ফল তৃণমূলের অনুকূলে আসায় সরকার গঠন করেন তিনি। তৃতীয়বারের জন্য রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী হয়ে তাঁর ঘোষিত প্রতিশ্রুতি রাখতে পদক্ষেপ নেন। ক্ষমতায় বসার দু’মাসের মধ্যেই প্রতিশ্রুতিমতো ছাত্র-ছাত্রীদের উচ্চশিক্ষায় ক্রেডিট কার্ড প্রকল্পটি চালু করলেন তিনি। যেখানে রাজ্যের ক্লাস টেন থেকেই ছাত্র-ছাত্রীরা স্টুডেন্ট ক্রেডিট কার্ডের সুবিধা নেওয়ার সুযোগ পাবে। ১০ লক্ষ টাকা পর্যন্ত সরকারি ঋণ পাবে তারা। তার জন্য কোনও গ্যারেন্টারও লাগবে না। সরকার তাদের গ্যারেন্টার হবে। এই রাজ্যের এমন বহু পরিবার আছে যারা সন্তানদের উচ্চশিক্ষা দিতে পারে না শুধু অর্থের অভাবে। মুখ্যমন্ত্রীর এই ঘোষণা, তাদের সেই আশা পূরণের এক পদক্ষেপ বলে মবে করছেন বুদ্ধিজীবী মহল। শুধু দেশের অভ্যন্তরে পড়াশোনা চালিয়ে নিয়ে যাওয়ার জন্য নয়, বিদেশের প্রতিষ্ঠানেও এই ক্রেডিট কার্ডের সাহায্যে পড়াশোনা করা যাবে বলে জানিয়েছে সরকার। চাকরি পাওয়ার পর এক বছর সময় পাওয়া যাবে ঋণশোধ শুরু করার জন্য। ১৫ বছরের মধ্যে শোধ করতে হবে এই ঋণ।

education

শিক্ষা খাতে এর আগেও বহু রকম পদক্ষেপ নিয়েছে সরকার। কন্যাশ্রী প্রকল্প আজ বিশ্ববিখ্যাত এক প্রচেষ্টা। এছাড়াও একটার পর একটা সুবিধা দিয়ে গেছেন মুখ্যমন্ত্রী ছাত্র-ছাত্রীদের। এখন দেখার তাঁর এই প্রকল্পটি বাংলার ছাত্রসমাজকে কতটা এগিয়ে যেতে সাহায্য করে। তাদের ভবিষ্যৎ গড়ে তুলতে কতটা সাহায্য করে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *