অটো, টোটোতে লাগাম ছাড়া ভাড়া

নিজস্ব প্রতিনিধি: করোনায় আক্রান্ত এবং মৃত্যুর সংখ্যা ক্রমশ নিম্নমুখী। আর সেই কারণে রাজ্যের লকডাউন বা বিধিনিষেধের কড়াকড়ি থেকে শিথিল করা হয়েছে বা হচ্ছে প্রাত্যহিক জীবনযাত্রার সঙ্গে জড়িয়ে থাকা বিভিন্ন মাধ্যম। অফিস কাছারিগুলিকেও ছাড় দেওয়া হয়েছে বিশেষ কিছু বিধিনিষেধের ঘেরাটোপ থেকে। মেট্রো এবং লোকাল ট্রেন ছাড়া বাস, মিনিবাস, টোটো, অটো চালানোর কথাও বলেছে সরকার। কিন্তু, এখনও পর্যন্ত রাস্তায় বেসরকারি বাস সেভাবে নামেনি। বাস মালিকদের বক্তব্য, বাসের ভাড়া না-বাড়ালে তাঁদের পক্ষে বাস চালানো অসম্ভব। তার ওপর বিধিনিষেধ মেনে পুরনো ভাড়ায় বাস চালানো সম্ভব হবে না। কিন্তু সরকার থেকে কোনওরকম ইতিবাচক সাড়া না-পাওয়ায় ঘোষণার তিন দিন পরেও বাস নেই রাস্তায়।

আর এইক্ষেত্রে সবচেয়ে বেশি সমস্যায় পড়েছে অফিসযাত্রীরা। সরকারি, বেসরকরি সংস্থা খুলে গেছে অথচ যাতায়াতের মাধ্যম বলতে এখন অটো, টোটো। আর ভাড়া নিয়ে বেসরকারি বাস মালিকরা সরকারি নির্দেশের অপেক্ষায় থাকলেও আটো এবং টোটো চালকরা চলেন আপন মর্জিতে। সুযোগ বুঝে তাঁরাও হেঁকে চলেছেন এক এক দূরুত্বে এক এক রকমের ভাড়া। কোথাও ৫-৬ কিলোমিটার দূরত্বের জন্য ভাড়া গুনতে হচ্ছে ৭০ থেকে ৮০ টাকা। দেড়-দু’ কিলোমিটার রাস্তার জন্য নিচ্ছে ২৫ -৩০ টাকা। চরম যন্ত্রণায় পড়েছেন মানুষ। প্রতিদিন যাঁদের আয় দু’আড়াইশো টাকা, তাঁদের ভাড়া দিতে যদি দেড়-দু’শো টাকা চলে যায় প্রতিদিন তবে পেট চলবে কীভাবে! এই প্রশ্ন এখন নিত্যযাত্রীদের। অফিস খুলে গেছে কামাই করলে চলবে না। চাকরি থাকবে কি থাকবে না তার ঠিক নেই। এই ভাবনায় পড়িমরি করে যেতে হচ্ছে অফিস। অনেকেই সরকারের সিদ্ধান্তের দিকে তাকিয়ে। এখন দেখার কবে বেসরকারি বাস মালিক এবং সরকার পক্ষের মধ্যে একটা সহজ সমাধান হয় এবং বাস রাস্তায় নামে

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *